আপডেট নিউজ : চরম গ্যাস সংকটে চট্টগ্রাম

0
98
আপডেট নিউজ : চরম গ্যাস সংকটে চট্টগ্রাম
আপডেট নিউজ : চরম গ্যাস সংকটে চট্টগ্রাম

আপডেট নিউজ

চরম গ্যাস সংকটে চট্টগ্রাম, এলপিজি-অকটেনে ঝুঁকছেন চালকরা

বিবিসিনউজ২৪ ডেস্ক: চট্টগ্রামে গ্যাস সংকটে সিএনজি রিফুয়েলিং স্টেশন বন্ধ। ফলে অধিকাংশ সিএনজি চালিত অটোরিকশা বন্ধ রয়েছে। সিএনজি চালিত প্রাইভেট গাড়ির ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। ফলে চট্টগ্রাম নগরীর সড়কে যানবাহনের সংখ্যা কমে গেছে। এদিকে, বিকল্প জ্বালানি হিসেবে চালকরা ঝুঁকছেন এলপিজি ও অকটেনের দিকে।

তবে পাইপলাইনের মাধ্যমে চট্টগ্রামে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহকারী কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (কেজিডিসিএল) সোমবারের মধ্যে গ্যাস সরবরাহ পুনরুদ্ধার করবে বলে আশা করছে।

ঘূর্ণিঝড়ের কারণে মহেশখালী এলএনজি টার্মিনাল থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় গত তিন দিন ধরে চট্টগ্রামে তীব্র গ্যাস সংকট শুরু হয়েছে। বিশেষ করে সিএনজি রিফুয়েলিং স্টেশন বন্ধ থাকায় সমস্যায় পড়ছেন সিএনজি অটোরিকশা চালকরা।

আপডেট নিউজ – চরম গ্যাস সংকটে চট্টগ্রাম

অন্যদিকে গ্যাসের অভাবে অধিকাংশ সিএনজি যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে সাধারণ যাত্রীদের বেশি ভাড়ায় গন্তব্যে যেতে হয়। তবে চালকদের একটি অংশ অকটেন ও এলপিজিতে তাদের যানবাহন চালায়।

সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নগরীর বেশ কয়েক স্থানে সরেজমিনে দেখা গেছে, রাস্তায় সিএনজিচালিত গাড়ি হাতেগোনা। টাইগারপাস মোড়ের রেইনবো সিএনজি স্টেশন এবং ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন বন্ধ। তবে ইন্ট্রাকোতে এলপিজি সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। এই স্টেশনে এলপিজি নেওয়ার জন্য ভিড় জমান অটোরিকশা চালকরা।

দামপাড়া এলাকা সিএমপি ফুয়েল স্টেশনে পৌনে ১২টায় গিয়ে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক অকটেন নিচ্ছেন। সিএনজি চালক সুরুজ মিয়া বলেন, গত দুইদিন গ্যাসের (সিএনজি) জন্য গাড়ি বন্ধ ছিল। এখন বাধ্য হয়ে বের হয়েছি। দুই লিটার অকটেন নিয়েছি ২৬০ টাকায়।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পাঁচলাইশ খান ব্রাদার্স সিএনজি প্রা. লিমিটেডের রিফুয়েলিং স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, তাদের সিএনজি সরবরাহ বন্ধ। তবে লাইন ধরে এলপিজি নিচ্ছেন সিএনজিচালিত অটোরিকশাগুলোর চালকরা। অটোরিকশা চালক মো. আল আমিন বলেন, গত দুইদিন ধরে সিএনজি পাচ্ছি না বলে আমরা বাধ্য হয়ে এলপিজি দিয়ে চালাচ্ছি।

রিফুয়েলিং স্টেশনটির সেলসম্যান তৌহিদুল ইসলাম বলেন, অটোরিকশাগুলো তেমন একটা এলপিজি নেয় না। বেশিরভাগ সিএনজিচালিত। এখন সিএনজি বন্ধ থাকায় গত দুইদিন ধরে এলপিজির চাহিদা হঠাৎ করে বেড়ে গেছে।

কেজিডিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, আজ (সোমবার) নাগাদ গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে। এটি গৃহস্থালি, বাণিজ্যিক ও সিএনজি স্টেশনে গ্যাস সরবরাহ করবে। তবে বিদ্যুৎ ও সার কারখানায় গ্যাস সরবরাহ করতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.